মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

গ্রাম আদালত

স্থানীয়ভাবে পল্লী অঞ্চলের সাধারণ মানুষের বিচার প্রাপ্তির কথা বিবেচনায় নিয়ে স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশ ১৯৭৬ সালে প্রণীত হয় গ্রাম  আদালত অধ্যাদেশ। পরবর্তীতে ২০০৬ সালের ০৯ মে ১৯ নং আইনের মাধ্যমে প্রণীত হয় গ্রাম আদালত আইন ।এ আইনের মূল কথাই হলো স্হানীয়ভাবে স্বল্প সময়ে বিরোধ নিষ্পিত্তি। নিজেদের মনোনীত প্রতিনিধিদের সহায়তায় গ্রাম আদালত গঠন করে বিরোধ শান্তি পূর্ণ সমাধানের মাধ্যমে সামাজিক শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় থাকে বলেই এ আদালতের মাধ্যমে আপামর জনগণ উপকৃত হচ্ছেন ।

 

দেশের নিম্ন আদালত ও উচ্চ আদালতের মামলা জট কমাতে স্থানীয় সরকারের অধীনে পরিচালিত গ্রাম আদালত ব্যাপক ভূমিকা রাখতে পারে। গ্রাম আদালতের মাধ্যমে সাধারণ মামলাসমূহ পরিচালনা করলে একদিকে যেমন মামলা জট কমবে অন্যদিকে ভিকটিমের অর্থনৈতিক সাশ্রয় হবে। ভিকটিমের সাংসারিক বৈষম্য ফিরে আসবে। অভিজ্ঞমহল মনে করছেন স্থানীয় সরকাকে শক্তিশালী ও কার্যকর করণের মাধ্যমে গ্রাম আদালতকে অধিকতর গুরুত্বের সঙ্গে সচল রাখতে হবে। স্থানীয় সরকারকে শক্তিশালীকরণের মাধ্যমে গ্রাম আদালতের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে কথা বলেছেন স্থানীয় সরকার কমিশনের সাবেক সদস্য ড. তোফায়েল আহমেদ। ড. তোফায়েল আহমেদ বলেন, সরকার গ্রাম আদালতকে সচল করলে নির্বাহী ও বিচার বিভাগের ছন্দপতন ঘটবে। কারণ ইতিমধ্যে বিচারবিভাগকে পৃথক করা হয়েছে। কোন ইউনিয়ন চেয়ারম্যানকে দিয়ে গ্রাম আদালত পরিচালনা করা সঠিকভাবে সম্ভব হবেনা। তাদের সালিশের ক্ষমতা দিতে হবে। গ্রাম আদালতকে শক্তিশালী করা ঠিক হবেনা। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, দেশে মামলা জটের অন্যতম একটি কারণ হলো আইনজীবীরা। তারা একটি মামলাকে দীর্ঘদিন ধরে পরিচালনা করে থাকেন। গ্রাম আদালতের বিষয়ে তিনি আরো বলেন, এটিকে সংশোধনের মাধ্যমে সালিশে পরিনত করতে হবে। ইউনিয়ন পরিষধের চেয়ারম্যানদেরকে সালিশ ব্যবস্থায় বিচার কাজ পরিচালনা করার ক্ষমতা দিতে হবে। গ্রাম আদালতের নাম পরিবর্তণ করে উপজেলা পর্যায়ে আদালত চালু করতে হবে।

স্থানীয় সরকারেকে কার্যকর ও শক্তিশালীকরণে ম্যাস লাইন মিডিয়া সেন্টার কাজ করে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন ম্যাস লাইন মিডিয়া সেন্টারের নির্বাহী পরিচালক কামারুল হাসান মঞ্জু। তিনি বলেন, স্থানীয় সরকারকে অবশ্যই শক্তিশালী করতে হবে। তা না হলে দেশের সার্বিক উন্নয়ন সম্ভব নয়। গ্রাম আদালত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, দেশের প্রতিটি ইউনিয়নে এ আদালতের কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে। এতে কেন্দ্রীয় সরকার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। তাছাড়া মিডিয়ার সঙ্গে স্থানীয় সরকারের বেশ দুরত্ব রয়েছে। এ দুরত্ব কমাতে হবে। তবেই স্থানীয় সরকারের অধীনে শুধু গ্রাম আদালত নয় সকল বিভাগকেই শক্তিশালী করা সম্ভব হবে।